জানাজার নামাজের পর মুনাজাত করা জায়েজ প্রমাণিত

By | June 23, 2023
জানাজার নামাজের পর মুনাজাত করা জায়েজ প্রমাণিত

এই পোষ্টে জানাজার নামাজের পর মুনাজাত করা জায়েজ প্রমাণিত জানতে পারবেন। যাদের প্রশ্ন আছে জানাজার পর দোয়া করা যাবে কিনা তারা উত্তর পেয়ে যাবেন।

জানাজার নামাজের পর সম্মিলিত মুনাজাত করার অনেক প্রমান রয়েছে। তবে আজকের এই লেখায় সংক্ষেপে আলোচনা করা হলো।

মহান আল্লাহ্ পাক পবিত্র কালামে পাকে ইরশাদ করেন,

অর্থাৎ “প্রত্যেক প্রাণীকেই মৃত্যুবরণ করতে হবে।” (সূরা আলে ইমরান/১৮৫. সূরা আম্বিয়া/৩৫, সূরা আনকাবূত/৫৭)

কাজেই কোন মুসলমান মৃত্যুবরণ করার পর জীবিতদের প্রতি দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে যথা শীঘ্র মৃত ব্যক্তির দাফনের ব্যবস্থা করা এবং দাফন কার্য্যে বিলম্ব না করা। কেননা হুযূর পাক সাঃ বলেন,

তোমাদের মধ্যে যখন কেউ মৃত্যূ বরণ করে তখন তাকে আবদ্ধ করে রেখে দিওনা বরং যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তাকে দাফন করতে কবরে নিয়ে যাও। “তাবারানী) অবশ্য দাফনের পূর্বে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ ও জরুরী কাজ রয়েছে, যেমন প্রথমতঃ মাইয়্যেতকে গোসল করানো, দ্বিতীয়তঃ কাফনের কাপড় পরিধান করানো, তৃতীয়তঃ মাইয়্যেতের উপর জানাযা পড়া। মূলতঃ মাইয়্যেতের উপর জানাযা পড়া শুধু ফযীলত লাভেরই কারণ নয় বরং মাইয়্যেতের উপর জানাযা পড়া স্বয়ং আল্লাহ্ তায়ালার নির্দেশ। যেমন রাসুলে পাক সাঃ কে লক্ষ্য করে আল্লাহ্ তায়া’লা বলেন,

“(হে নবী সাঃ) আপনি তাদের (মু’মিনগণের) উদ্দেশ্যে নামাযে জানাযা পড়ুন। নিশ্চয়ই আপনার নামায তাদের জন্য শান্তির কারণ সরূপ।” (সূরা তাওবা/১০৩)

অত্র আয়াতে স্বয়ং আল্লাহ্ তায়া’লা জানাযা নামাযের গুরুত্ব, ফাযায়েল-ফযীলত বর্ণনা করেছেন। আর তা মু’মিন-মুসলমানগণের জন্য রহমত, বরকত ও শান্তির কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

জানাজার নামাজের পর মুনাজাত করা জায়েজ

হযরত আউফ ইবনে মালিক আশ্জায়ী (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, একবার রাসুল সাঃ এক জানাযা নামায পড়লেন। আমি তাঁর দুয়ার কিছু অংশ মুখস্ত রেখেছি। তিনি দুয়াতে বলেছেনঃ “আয় আল্লাহ্ পাক! আপনি তাকে মাফ করুন, তার প্রতি রহম (দয়া) করুন, তাকে শান্তিতে রাখুন, তার অবস্থানকে মর্যাদাময় করুন, তার কবর-অবস্থান স্থলকে প্রশস্ত করুন, তাকে পাক-পবিত্র করে দিন, পানি, বরফ ও বৃষ্টির পানি দ্বারা। তাকে গুণাহ থেকে এভাবে পবিত্র করে দিন, যেমন সাদা কাপড়কে ময়লা থেকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়। তাকে তার বাড়ী থেকে উত্তম বাড়ী দান করুন, তার পরিবার থেকে উত্তম পরিবার, তার স্ত্রী থেকে উত্তম স্ত্রী দান করুন। তাকে কবরের ও দোযখের আযাব থেকে রক্ষা করুন।” হযরত আউফ (রাঃ) বলেন, আমি আকাঙ্কা করতে লাগলাম যে, হায়! আমি যদি এই মৃত ব্যক্তিই হতাম! (মুসলিম শরীফ ১ম জিঃ ৩১১ পৃষ্ঠা, মিশকাত শরীফ ১৪৫ পৃষ্ঠা, মিরক্বাত, শরহুত্ ত্বীবী, আত্ তা’লীকুছ ছবীহ, মিরয়াতুল্ মানাজীহ, মুছান্নাফু ইবনে আবী শাইবাহ্ ৩য় জিঃ ২৯১পৃষ্ঠা)

দাফনের পর সম্মিলিতভাবে দোয়া করা

হজরত উসমান ইবনে আফফান রা. থেকে বর্ণিত আছে। তিনি বলেন- ‘নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন কোনো মৃতের দাফনকার্য সম্পন্ন করতেন তখন তার কবরের পাশে কিছুক্ষণ অবস্থান করতেন এবং বলতেন, তোমরা তোমাদের ভাইয়ের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করো এবং (সওয়াল-জওয়াবের সময়) অবিচল থাকার দোয়া করো। কেননা তাকে এখনই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।’ (সুনানে আবু দাউদ, হাদিস: ৩২১৩)

👉জানাজার নামাজের পর সম্মিলিত মুনাজাত করার দলিল জানতে নিচের ভিডিওটি দেখুনঃ-

জানাযার নামাজের পরে হাত তুলে দোয়া করা জায়েজ কিনা, মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদী

আরো পড়ুন-

তথ্য সূত্রেঃ

sunni-encyclopedia.com/2020/07/blog-post_77.html

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *