মিলাদ কিয়াম করা জায়েজ কোরআন হাদিস থেকে

By | February 18, 2023
মিলাদ কিয়াম করা কি জায়েজ

এই পোষ্টের মাধ্যমে মিলাদ কিয়াম করা জায়েজ কোরআন হাদিস থেকে জানতে পারবেন। আশা করি যাদের মনে এই প্রশ্ন আছে তারা উত্তর পেয়ে যাবেন।

স্বয়ং আল্লাহ তাঁর রাসূল পাক (সা:) এর উপর মিলাদ পড়েন

মিলাদ আরবী শব্দ, এর অর্থ জন্মকাল। এককথায় বলতে গেলে বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর জন্মকালীন ঘটনাবলী উল্লেখ করা ও দরুদ পাঠ করাকে মিলাদ বলা হয়ে থাকে।

পবিত্র কুরআন শরীফে আল্লাহ বলেন-
“নিশ্চয়ই আল্লাহ স্বয়ং ও তাঁর ফেরেশতারা নবীর উপরে দরুদ পাঠ করেন, হে বিশ্বাসীগণ! তোমরাও তাঁর উপরে দরুদ পড় এবং শ্রদ্ধার সাথে সালাম পেশ কর।” (সূরা আহযাব, আয়াত নং ৫৬)।

রাসূলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর জন্ম বৃত্তান্ত ও গুণকীর্তন পেশ করার নামই হলো মিলাদ। মিলাদ অর্থ নবীজি (সাঃ) এর উপর দরুদ ও সালাম পেশ করা। পবিত্র কুরআন শরীফে আল্লাহ তায়ালা ঘোষণা দিয়েছেন: সূরা আজহাব ৫৬ নং আয়াতে, সেটাই করা হয়।

সর্বশক্তিমান আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআন শরীফের কোথাও বলেননি আমি নামাজ পড়ি, আমি রোজা রাখি, আমি হজ করি, আমি যাকাত দেই, হে মুমিনগণ তোমরাও কর। বরং এটা বলেছেন আমি নবীর উপর দরুদ পাঠ করি হে বিশ্বাসীগণ তোমরাও তাঁর উপর দরুদ পড়।

আল্লাহ তায়ালা একটা কাজ করেন তা হলো নবীর উপর দরুদ পাঠ করেন। আমরাও মিলাদের মাধ্যমে রাসুল (সাঃ) এর উপর দরুদ পাঠ করি।

রাসূলে করিম সাঃ নিজেই মিলাদ পালন করেছিলেন

১। পবিত্র হাদিস শরীফে ইরশাদ হয়েছে-

বিশিষ্ট সাহাবী হযরত কাতাদাহ (রাঃ) হতে বর্ণিত, তিনি নবীজীকে জিজ্ঞেস করলেন, হে আল্লাহর রাসুল (সাঃ) আপনি কেন প্রতি সোমবারে রোযা রাখেন? প্রতি উত্তরে নবীজী বললেন, আমি ঐ তারিখে শুভ আগমন করেছি এবং ঐ তারিখেই আমার ওপর পবিত্র কোরআনের (প্রথম পাঁচ আয়াত) নাযিল হয়৷
[সহিহ মুসলিম শরীফ- কিতাবুস সওম হাদীছ নং ১১৬২ ও আরাবী মেশকাত শরীফ ১৭৯ নং পৃষ্টা]

২। পবিত্র হাদিস শরীফে ইরশাদ হয়েছে

হযরত আবু কাতাদা (রাঃ) হতে বর্ণিত, একজন সাহাবী হুজুর পাক সাঃ এর খেদমতে আরজ করলেন ইয়া রাসুলাল্লাহ, ইয়া হাবিবাল্লাহ আমার মাতা পিতা আপনার নূরের পাক কদমে কুরবান হোক। আপনি প্রতি সোমবার রোজা পালন করেন কেন? জবাবে হুজুর পাক সাঃ বলেন,“ এই দিনে আমি প্রেরিত হয়েছি এবং পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ এই দিনেই আমার উপর নাজিল হয়েছে।”

দলিল

  • সহীহ মুসলিম শরীফ ২য় খন্ড, ৮১৯ পৃষ্ঠা,
  • বায়হাকী: আহসানুল কুবরা,৪র্থ খন্ড,২৮৬ পৃষ্ঠা,
  • মুসনাদে আহমদ ইবনে হাম্বল,৫ম খন্ড,২৯৭ পৃষ্ঠা,
  • মুসান্নাফে আব্দুর রাজ্জাক,৪র্থ খন্ড, ২৯৬ পৃষ্ঠা,
  • হিলিয়াতুল আউলিয়া,৯ম খন্ড, ৫২ পৃষ্ঠা,
  • মুসনাদে আবী আওয়ানা, হাদিস নং-২৯২৬
  • সহীহ ইবনে খুজাইমা, হাদিস নং-২১১৭
  • সুনানে আবী দাউদ,হাদীস নং-২৪২৮

সাহাবায়ে কিরামগনও মিলাদ কিয়াম করতেন

মিলাদ কিয়াম করা জায়েজ হাদিস শরীফ থেকে দলিল দেওয়া হলোঃ

আমরা যেভাবে করে মিলাদ মাহফিল আয়োজন করে থাকি তা সাহাবায়ে কিরাম রাদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুগণের যামানাতেই ছিল।

১. হাদিস শরীফে ইরশাদ হয়েছে,

“হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু হতে বর্ণিত আছে যে, তিনি একদা তাঁর নিজ গৃহে সমবেত সাহাবীগণকে আল্লাহ পাক এর হাবীব রাসুলে পাক (সাঃ) এর বিলাদত শরীফ-এর ঘটনা সমূহ শুনাচ্ছিলেন।

এতে শ্রবণকারীগণ আনন্দ ও খুশী প্রকাশ করেছিলেন এবং আল্লাহ পাক এর প্রশংসা তথা তাসবীহ তাহলীল পাঠ করছিলেন। সাথে সাথে আল্লাহ পাক এর হাবীব হুজুর পাক সাঃ এর উপর দুরূদ শরীফ পাঠ করছিলেন। এমন সময় রাসুলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সেথায় উপস্থিত হলেন। (নবী করিম সাঃ যখন উপস্থিত হলেন, সমবেত লোকজন দাঁড়িয়ে অর্থাৎ ক্বিয়াম শরীফ করে সালাম পেশ করলেন এবং আসনে বসালেন)। তিঁনি লোকজনের মিলাদ শরীফ পাঠের অনুষ্ঠান দেখে তাদেরকে উদ্দেশ্য করে বললেন, “তোমাদের জন্য আমার শাফায়াত ওয়াজিব।”
[সুবুলুল হুদা ফি মাওলিদে মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, হাক্বীক্বতে মুহম্মদী ও মীলাদে আহমদী, পৃষ্ঠা- ৩৫৫]

২. হাদিস শরীফে ইরশাদ হয়েছে,

মিশকাত শরীফের ৪১০ পৃষ্ঠায় লিখিত আছে

হযরত আয়েশা (রাঃ) বলেন, রাসূলে পাক সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হযরত হাসসান (রাঃ) এর জন্য মসজিদে নববীতে একটি মিম্বর স্থাপন করলেন। তিনি উহার উপর দাঁড়িয়ে আল্লাহর হাবিবের পদমর্যাদা (গুণাবলী ও গৌরবময় জীবনী) সজোরে বয়ান করতেন। আল্লাহর হাবিব (তা শ্রবণ করে সন্তুষ্টচিত্তে) বলতেন, নিশ্চয়ই হাসসান যতক্ষণ হুজুরের গুণরাজী বয়ান করতে থাকেন ততক্ষণ আল্লাহ তা’য়ালা হযরত জিব্রাঈল (আঃ) দ্বারা তাঁর সহায়তা করতে থাকেন।’

(বুখারী শরীফ)

উপরোক্ত হাদিস শরীফ দ্বারা সু-পষ্টভাবে প্রমাণিত হল যে, প্রিয় নবীজি সাঃ এর পদ-মর্যাদাসূচক শ্লোক বা কবিতা পাঠকালে দণ্ডায়মান হওয়া (কিয়াম করা) সুন্নাতে সাহাবা।

আরো ভালভাবে জানতে নিচের ভিডিও দেখুন-

মিলাদ কিয়াম করা কি জায়েজ

আরো পড়ুন-

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *