টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার নিয়ম

By | September 2, 2022
টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার নিয়ম

টিন সার্টিফিকেট খুবই প্রয়োজনীয় একটি জিনিস। আমাদের দেশে তিন সার্টিফিকেট প্রায় সকলেরই প্রয়োজন হয় বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কারণে। তবে আমাদের দেশে কিছু ব্যতিক্রম বাদে তিন সার্টিফিকেটধারী সকলেই কর দিতে হয়। এবং সকলকে প্রতিবছর রিটার্ন জমা দিতে হয়। তবে কোন কারণবশত যখন টিম সার্টিফিকেট বাতিল করার প্রয়োজন হয় তখন আমরা খুব চিন্তায় পড়ে যায়। কারণ আমরা অনেকেই জানিনা যে তিন সার্টিফিকেট কিভাবে বাতিল করতে হয়।

আজকে আমরা শুধুমাত্র আপনাদের জন্য আমাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে নিয়ে এসেছি নতুন একটি আর্টিকেল যার মাধ্যমে আমরা আলোচনা করব টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার সকল নিয়ম সম্পর্কে। আপনারা যারা জানতা আগ্রহী রয়েছেন তারা আমাদের আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার পর ওই ব্যক্তিকে পর অধিদপ্তর থেকে আর কর দাতা হিসেবে গণ্য করা হয় না। ফলে ওই ব্যক্তির প্রতি বছর পর দেওয়া বা রিটার্ন্ট জমা দেওয়ার ঝামেলাও থাকে না। ঠিক সেই কারণে আমাদের প্রত্যেকের জেনে রাখা দরকার যে কিভাবে টিম সার্টিফিকেট বাতিল করতে হয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

কখন টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার প্রয়োজন পড়ে?

আপনি যদি আপনার টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে চান তাহলে অবশ্যই এর পিছনে কোন কারণ থাকতে হবে। কোন কারন ছাড়া আপনি আপনার টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে পারেন না। টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে চাওয়ার অধিকাংশ ক্ষেত্রেই প্রধান কারণ সাধারণত হয়ে থাকে করযোগ্য আয় না থাকা। বাংলাদেশ যাদের উপর আয়কর প্রযোজ্য হবে তার একটি তালিকা হল:

যাদের বাৎসরিক আয় তিন লক্ষ টাকার উর্ধ্বে তাদের আয়কর প্রদান করতে হবে। বাৎসরিক আয় যদি তিন লক্ষ টাকার কম হয় তাহলে তাকে আর আইকর প্রদান করতে হবে না। ৬৫ বছর বয়সের উপরে কোন মহিলার বাৎসরিক আয় তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকার উপরে হলে তাকে আয়কর প্রদান করতে হবে।

তবে এই তালিকার চাইতে কম পরিমাণে কারো বাৎসরিক আয় হয়ে থাকলে তারপর দেওয়ার কোন প্রয়োজন নাই। অনেক সময়ে কারো এই পরিমাণের কম বাৎসরিকায় থাকা সত্ত্বেও অন্য কোন প্রয়োজনে তিন সার্টিফিকেট তৈরি করার প্রয়োজন হতে পারে সে ক্ষেত্রে পরবর্তীতে যদি ওই তিন সার্টিফিকেটটি প্রয়োজন না পরে তাহলে সেটি বাতিল করে দেওয়ায় ভালো।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র

আপনারা যারা টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে চাচ্ছেন তাদের জেনে রাখা প্রয়োজন যে তিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্রের দরকার পড়ে। টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য খুব বেশি কাগজ পাতিনের প্রয়োজন না হলেও কিছু কিছু কাগজপত্র রয়েছে যেগুলো আপনাকে সাথে নিয়ে যেতে হবে।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য আপনার বর্তমান টিন সার্টিফিকেট এর একটি প্রিন্ট কপি এবং 12 অক্ষরের তিন নাম্বার এর প্রয়োজন পড়বে। এছাড়াও আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র ও তার ফটোকপি এর প্রয়োজন পড়বে। সাধারণত এইসব কাগজপত্র সাথে থাকলেই আপনি খুব সহজেই টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে পারবেন।

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার নিয়ম

টিন সার্টিফিকেট বাতিল করার জন্য আপনাকে সশরীরে কর অফিসে উপস্থিত হয়েই করতে হবে। বাংলাদেশ করদাতাদের ভাগ করার জন্য উপর গ্রহণের সুবিধার জন্য বাংলাদেশকে মোট ৩১ টি কর অঞ্চলে ভাগ করা হয়েছে। এই ৩১ টি অঞ্চল আবার মোট 649 টি কর সার্কেলে বিভক্ত। প্রতিটি কর সার্কেলে একটি করে নির্দিষ্ট আয়কর অফিস রয়েছে। টিন সার্টিফিকেটধারী কোন কর অঞ্চলের কোন সার্কেলে অবস্থিত তার টিন সার্টিফিকেটের উপরেই লেখা থাকে। টিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে এই অনুযায়ী করা অঞ্চলের নির্দিষ্ট সার্কেলের অফিসে যেতে হবে। তাহলে আপনি খুব সহজেই আপনার টিন সার্টিফিকেট বাতিল করে নিতে পারবেন।

প্রয়োজনের সময় টিন সার্টিফিকেট বাতিল করাটা অনেক ক্ষেত্রেই বেশ জরুরী একটি কাজ। তাই কিভাবে তিন সার্টিফিকেট বাতিল করতে হয় সে বিষয়ে জেনে রাখা অবশ্যই প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *