জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধন আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি ডকুমেন্ট। প্রাত্যহিক জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে আমরা এদের ব্যবহার করে থাকি। একটি শিশুর জন্মের 45 দিনের মধ্যে তাকে জন্ম নিবন্ধনের জন্য তার পিতা-মাতাকে নির্দেশনা দেওয়া হয়। জন্ম নিবন্ধন সাধারণত এমন একটি তথ্যভান্ডার যেখানে একটি দেশের নাগরিকের সকল তথ্য সংরক্ষিত থাকে স্থানীয় সরকার পরিষদের কাছে।

জন্ম নিবন্ধন সনদ পত্রের যে সকল তথ্য গুলো থাকে তার মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে জন্ম তারিখ। আমাদের মাঝে অনেকেই থেকে থাকেন যারা তাদের জন্ম নিবন্ধন এখন পর্যন্ত বের করতে পারেননি। যার কারণে তারা অনেক হতাশার মধ্যে রয়েছে কেননা তাদের প্রাত্যহিক জীবনে এই জন্ম নিবন্ধন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার জন্য আপনাকে জন্মনিবন্ধনের নম্বর জানা জরুরী তবে অনেকেই রয়েছে যারা এই নাম্বারটি মনে রাখতে পারে না তাদের জন্য আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি সাজানো হয়েছে। আজকে আমরা আপনাদের জন্য আলোচনা করতে চলেছি যে কিভাবে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করবেন জন্মতারিখের মাধ্যমে তদন্ত বেশ কিছু তথ্য। জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করার নিয়ম রয়েছে যেগুলো আপনি একটু অনুসরণ করলেই খুব সহজেই অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে তা যাচাই করতে পারবেন।

জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার নিয়ম

আপনি যদি জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করতে চান তাহলে আপনাকে আমাদের নির্দেশনা অবশ্যই মেনে চলতে হবে। বর্তমানে সবকিছুই ঘরে বসে থেকে করা সম্ভব অনলাইনের মাধ্যমে যার কারণে জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন বের করার ক্ষেত্রে আপনাকে অনলাইনে দ্বারস্থ হতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন আবেদন এর বর্তমান অবস্থা যাচাই

  • জন্ম নিবন্ধন যাচাই করতে হলে প্রথমে আপনাকে everify.bdris.gov.bd এই লিংকে প্রথমে প্রবেশ করতে হবে।
  • ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর আপনি সেখানে তিনটি অপশন পাবেন একটি আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বর নেত্রীতে আপনার জন্ম তারিখ লেখার অপশন থাকবে।
  • নির্ধারিত স্থানে আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরটি লিখে রাখুন।
  • আপনার জন্ম তারিখ দিন মাস এবছর উল্লেখ করে ধারাবাহিকভাবে লিখুন।
  • নিচের অংশে কোড দিতে হবে উক্ত প্রশ্ন সমাধান যথাযথভাবে দেন।
  • সাবমিট করুন এবং আপনার জন্ম নিবন্ধনের তথ্য প্রদর্শিত হবে বলে মনে করি।

আপনারা যা শুধু জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন সনদের তথ্য যাচাই করতে চান তাদের উদ্দেশ্যে আমাদের বেশ কিছু তথ্য রয়েছে। প্রতিদিন বাংলাদেশ একই সময়ে হাজার হাজার শিশু জন্মগ্রহণ করছে মনে করুন আপনার জন্ম তারিখ 24 শে মে 2004। এখন আপনি 24 মে লিখে যদি সার্চ করেন তাহলে আপনার সামনে হাজার হাজার মানুষের জন্ম তারিখ প্রদর্শিত হবে এই অবস্থায় স্থানীয় সরকার পরিষদ আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বর বের করতে সক্ষম হয় না।

জন্ম নিবন্ধন আবেদন করার নিয়ম

তবে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন বিশেষ ব্যবস্থা চালু করতে চলেছে যেখানে আপনি সহজে জন্ম তারিখ দিয়ে জন্ম নিবন্ধন যাচাই করার সুযোগ পাবেন তবে তা চালু করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সুতরাং জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই ক্ষেত্রে আপনার যে 17 ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার রয়েছে তার সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই নম্বরে আপনার ব্যক্তিত্ব পরিচয় বহন করবে। এর মধ্যে আপনার জন্ম সাল এলাকার নাম অন্যান্য তথ্য দিয়ে তৈরি করা হয়েছে।

জন্ম নিবন্ধন বাতিল করার নিয়ম

পরিশেষে আমরা আপনাদের এটা জানাতে চাই যে জন্ম তারিখ দিয়ে কোন ভাবে জন্ম নিবন্ধন তথ্য যাচাই করা সম্ভব না। এক্ষেত্রে আপনি আপনার নিকটস্থ পৌরসভা ইউনিয়ন পরিষদ অথবা সিটি কর্পোরেশনের সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন। জন্ম নিবন্ধন হারিয়ে ফেললে আপনি অবশ্যই তাদের সাথে যোগাযোগ করে পরবর্তীতে কি কি করা লাগবে তার সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পাবেন।