ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২

বাংলাদেশের সর্বপ্রথম যে ব্যাংক ল্যান্ড করেছে তার নাম হচ্ছে ডাচ বাংলা ব্যাংক। দীর্ঘদিন যাবত এই ব্যাংকটি বাংলাদেশ গ্রাহকদের মাঝে বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে চলেছে যার কারণে বিশ্বস্ততার সাথে ব্যাংকিং সেবা চালু হয়েছে। প্রযুক্তির দিক দিয়ে অন্যান্য ব্যাংকিং সেবা ডাচ বাংলা ব্যাংক সবচেয়ে এগিয়ে।

আপনি যদি ডাচ-বাংলা ব্যাংক এ নিজের একাউন্ট খুলতে চান তাহলে আপনার জন্য সুখবর হলো এরকম বেসরকারি ও সহজে কোন ব্যাংকে একাউন্ট খোলার নজর এর আগে আমরা কোথাও দেখিনি। বর্তমানে এই ব্যাংকটি দিচ্ছে ঘরে বসেই গ্রাহকের যেকোনো ব্যাংকিং সেবা কার্যক্রম পরিচালিত করতে পারার সুবর্ণ সুযোগ। সাথে এক্সট্রা সিকিউরিটির ব্যাপারটি তো থাকছেই।আজকে আমরা আপনাদের শেখাবো কিভাবে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলা যায় তার বিস্তারিত তথ্য।

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

ডাচ বাংলা ব্যাংক দীর্ঘদিন যাবত আমাদের দেশের ব্যাংকিং সেবা দিয়ে এসেছে তা ছাড়া এ ব্যাংকিংয়ের অসাধারণ সেবা ও বিশ্বস্ততার কারণে আপনি অবশ্যই এখানে একটি একাউন্ট খোলার ইচ্ছে পোষণ করেছেন। আপনি ডাচ-বাংলা ব্যাংকের যে কোন ধরনের একাউন্ট খুলতে পারবেন আপনার নিকটস্থ যেকোনো ডাচ-বাংলা ব্যাংকের অফিস থেকে তবে আপনাকে একাউন্ট খোলার জন্য বেশ কিছু কাগজপত্র সংগ্রহ করে রাখতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য কি কি কাগজপত্র দরকার হয় তা সম্পর্কে জানি।

সাধারণত ডাচ বাংলায় দু’ধরনের একাউন্ট খোলা যায় ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট আর অন্যটি হলো ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট। আপনি যে ধরনের অ্যাকাউন্ট খুলতে চান না কেন আপনাকে নিচের দেওয়া কাগজপত্রগুলো অবশ্যই সংগ্রহ করতে হবে।

স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য যে যে কাগজপত্র লাগবে

  • আবেদনকারীর দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের সম্প্রতি তোলা ছবি।
  • আপনার সর্বশেষ অধ্যায়নরত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক সার্টিফিকেট অথবা ভর্তি ফরম এর অরজিনাল ও ফটোকপি।
  • আপনার একাউন্ট খোলার জন্য একজন নমিনীকে সামনে আনতে হবে কেননা আপনার অনুপস্থিতিতে সে টাকা তোলার অগ্রাধিকার পাবে।
  • রেফারেন্সের জন্য পূর্বে যার ডাচ-বাংলা এর অধীনে ব্যাংক একাউন্ট ছিল; সেই রকম একজন ব্যক্তির প্রয়োজন হবে। সে আপনার রেফারেন্স হিসেবে কাজ করবে।

সেভিংস একাউন্টের জন্য যে যে কাগজপত্র লাগবে

  • প্রথমত আবেদনকারীর সম্প্রতি তোলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • আপনি যদি ব্যবসায়িক স্বার্থে নিজের একাউন্ট খুলতে চান তাহলে আপনার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ট্রেড লাইসেন্স এর ফটোকপি।
  • জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।
  • নমিনি হিসেবে যাকে রাখতে চান তার জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি ও 1 কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • রেফারেন্স হিসেবে আপনি যে ব্যক্তিকে নির্বাচন করেছেন তাঁর জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি ও ছবি।

প্রথমে আপনাকে নির্বাচন করতে হবে যে আপনি কোন ধরনের অ্যাকাউন্ট খুলতে আগ্রহী অতঃপর আপনার নিকটস্থ যেকোনো ডাচ-বাংলা ব্যাংকের অফিসে যোগাযোগ করুন। তবে আপনাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে আপনার জেলাতে যে ডাচ বাংলা ব্যাংকের অফিসিয়াল ব্রাঞ্চ রয়েছে সেখানে যোগাযোগ করে অ্যাকাউন্ট খুললে অনেক বেশি সুবিধা পাওয়া যায়।

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট ফরম

আপনাদের কাছে মধ্যে অনেকেই রয়েছে যারা ডাচ বাংলা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে যে ফরম বিতরণ করা হয় তা খুঁজে চলেছেন। আপনাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে ডাচ-বাংলা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তার খাতিরে সাধারণত অনলাইনে কোন ধরনের একাউন্ট ফ্রম প্রকাশ করে না। আপনি নিকটস্থ ডাচ বাংলা ব্যাংকের যোগাযোগ করে আবেদন ফরম সংগ্রহ করতে হবে।

অ্যাকাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে আপনাকে একটি অফিস থেকে আবেদন ফরম দেওয়া হবে যা আপনাকে উপযুক্ত তথ্য প্রদান করে পূরণ করতে হবে যেমন আপনার নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, স্থায়ী ও অস্থায়ী ঠিকানা, জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর নির্ধারিত স্থানে আপনার ছবিগুলো অফিশিয়াল করতে যুক্ত করে দেওয়া হবে।

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার দেখার নিয়ম

আপনি যদি ডাচ-বাংলা ব্যাংক একাউন্ট খুলে থাকেন এবং এই অ্যাকাউন্ট নাম্বার জানার আগ্রহ প্রকাশ করেন তাহলে আপনাকে বলতে চাই যে আপনি একাউন্ট খোলার সময় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক একটি ফর্ম দেওয়া হবে যে ফরমেট আপনাকে ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট নাম্বার দেওয়া হয়ে থাকে।

পাশাপাশি একাউন্ট খোলার সম্পূর্ণ হলে 10 দিনের মধ্যে আপনাকে একটি ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট কার্ড দেওয়া হবে উক্ত কার্ডে আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট নম্বরটি দেখতে পারবেন। আপনি যেকোন নিকটস্থ ডাচ বাংলা ব্যাংকের এটিএম বুথে গিয়ে আপনার কাজটি প্রবেশ করে পিন নম্বর প্রদান করলে আপনার অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত সকল তথ্য জানতে পারবেন।

অন্যদিকে ডাচ বাংলা ব্যাংকের অফিসিয়াল মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে তা আপনার স্মার্টফোনে যদি ইনস্টল করেন নেক্সাস পে এপ গুগল প্লে স্টোর থেকে ইন্সটল করে নিন এবং তা লগইন করে আপনি আপনার ডাচ বাংলা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট নাম্বার দেখতে পারবেন।

ডাচ বাংলা ব্যাংক একাউন্ট কোড

ডাচ বাংলা ব্যাংক একটি জনপ্রিয় ব্যান্ড হওয়ার সুবাদে ব্যাংকের একটি একাউন্ট কোড রয়েছে একাউন্ট কোড সম্পর্কে জানার জন্য দেশের অনেক মানুষ আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আপনি যদি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জানতে চান তাহলে আপনার মোবাইলের ডায়াল প্যাড এ গিয়ে ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিং কোড *322# ডায়াল করে ব্যালেন্স অনুসন্ধান অপশন বাচাই করে পিন নাম্বার দিলে আপনার একাউন্ট ব্যালেন্স জানা যাবে।

ডাচ বাংলা ব্যাংক সেভিংস একাউন্ট চার্জ

ব্যাংকে টাকা রাখলে কত টাকা চার্জ কাটা হয় তা সম্পর্কে একাউন্ট খোলার পূর্বে আপনার জানা উচিত ডাচ-বাংলা ব্যাংক দেশের সর্বনিম্ন রেট তাদের সেভিংস স্টুডেন্ট একাউন্ট এর চার্জ প্রদান করে থাকে তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক ডাচ বাংলা ব্যাংকের সেভিংস একাউন্টের চার্জ সম্পর্কে।

Screenshot-2022-03-28-at-8-19-33-AM

আপনার সেভিংস একাউন্টের যদি 10 হাজার টাকা থেকে থাকে এক্ষেত্রে আপনার কোন ধরনের একাউন্ট চার্জ কাটা হবে না।

আপনার সেভিংস একাউন্টে যদি 10000 টাকার বেশিও থেকে 25 হাজার টাকার ক থেকে থাকে তাহলে ছয় মাস পর আপনার একাউন্ট থেকে 100 টাকা + 15 শতাংশ ভ্যাট সরকারিখাতে কাটা হবে।

25000 টাকার থেকে বেশি কিন্তু 200000 টাকার থেকে কম এমন সেভিংস একাউন্ট এর চার্জ হিসেবে 200 টাকা ও 15% সরকারি খাতে ভ্যাট কাটা হবে।

ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্ট চার্জ

ডাচ বাংলা ব্যাংক ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিশেষ সুযোগ-সুবিধা প্রদান করা হয়েছে কেননা বিভিন্ন ধরনের বৃত্তি পাশাপাশি ছাত্র-ছাত্রীরা বিভিন্ন কারণে ডাচ বাংলা ব্যাংকে একাউন্ট কেমন করে থাকে। স্টুডেন্ট একাউন্ট প্রতি মাসে সর্বোচ্চ ২ লক্ষ টাকা যুক্ত করা যাবে এবং উইথড্র করা যাবে। স্টুডেন্ট একাউন্ট থেকে প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা উত্তোলন করা যাবে। প্রতিদিন সর্বোচ্চ ৫ বার এটিএম কার্ডের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করা যাবে।