গ্রামীণফোন ই-সিম ব্যবহারের নিয়ম, দাম, সুবিধা ও কোন কোন ডিভাইসে চলবে জানুন

পহেলা মার্চ 2022 দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর গ্রামীণফোন অফিশিয়াল অ্যানাউন্সমেন্ট দিয়েছে। পাশাপাশি তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে জানানো হয়েছে গ্রামীণফোন সম্প্রতি প্রকাশ করতে চলেছে। আজকে আমরা আপনাদের দেখাবো গ্রামীনফোনের ই-সিম ব্যবহারের নিয়ম কোন কোন ডিভাইসে এই সিম ব্যবহার করা যাবে এবং তা কিভাবে ব্যবহার করবেন তার সকল তথ্য।

ই-সিম কি?

আলোচনার শুরুতে আমরা আপনাদের ই-সিম কি জিনিস তা সম্পর্কে জানাবো। আমরা সচরাচর যে সিম গুলো ব্যবহার করে তা প্লাস্টিকের চিপসেট দ্বারা তৈরি আমাদের ব্যবহারযোগ্য একটি ভার্চুয়াল সিম যার পূর্ণরূপ হল এমবেডেড সাবস্ক্রাইবার আইডেনটিটি মডিউল।

সাধারণত আমরা বাজার থেকে যে সিম কিনে থাকে তার ভেতরে সোনালি রঙের একটি জিনিস থাকে এটাই হচ্ছে চিপসেট। ঐ অংশের ভেতরে রয়েছে একটি চিপ বা ইলেকট্রনিক সার্কিট। এই চিপসেটের মধ্যে মোবাইল অপারেটর তার পরিস্থিতি আইডেন্টিটি ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে সংগ্রহ করে থাকে ফলে এই সিম যে কোন ফোনে চালু করা যাবে সেই ফোনে উপযুক্ত অপারেটরের নেটওয়ার্ক পাওয়া সম্ভব।

Screenshot-2022-03-02-at-7-18-40-PM

আপনি যখন কোনো অপারেটরের কাছ থেকে কিনবেন তখন তারা আপনাকে একটি কিউআর কোড দেবে। ওই কোডটি স্ক্যান করার মাধ্যমে আপনার ফোন উক্ত অপারেটরের সাথে আইডেন্টিফাই হয়ে যাবে আপনার এসএমএস ডাটাবেজে তথ্য সংগ্রহ করে নেবে তখন আপনার ফোনে ইন্সটল হয়ে যাবে এবং আপনি যে মোবাইল নাম্বার চালু করেছেন তা ফোনে সচল হবে।

গ্রামীণফোন ই-সিম এর সুবিধা কি?

ই-সিম হলো ডিজিটাল এবং পরিবেশবান্ধব প্রযুক্তি। এতে প্রতিটি সিমের জন্য আলাদা প্লাস্টিক ভাঙ্গা ইলেকট্রনিক্স চিপসেট দরকার হয় না। ইহা একটি ভার্চুয়াল সিম যার কারণে কোন ধরনের ছাড়া ব্যবহার করা যায় ফোনের মধ্যে একাধিক সিম ব্যবহার করে আপনি ইচ্ছামত চালু করতে পারবেন। পাশাপাশি তা বন্ধ করতে পারবেন যা সচরাচর আমরা দের ব্যবহারযোগ্য সিম গুলোকে হয়ে থাকে না অর্থাৎ আমাদের মোবাইলফোনে। সাধারণত দুইটি সিমের ধারণ ক্ষমতা থাকে কিন্তু সিম ব্যবহারের ফলে আপনার ফোনে ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী অদল বদল করতে পারবেন।

জিপি ই-সিম কোড কিভাবে পাব?

গত 2 মার্চ গ্রামীণফোন মোবাইল কোম্পানির কর্ণধার এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে পাশাপাশি অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে একটি ফিচার যুক্ত করার মাধ্যমে ঘোষণা করেন যে আগামী 7 এ মার্চ থেকে ইন দেশের বাজারে প্রকাশ করা হবে। এ ঘোষণার পর সারাদেশে ব্যবহারকারীরা অধীর আগ্রহে আগ্রহী যে এই সিম কোথায় পাওয়া যাবে তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে আগামী 7 মার্চ থেকেই সিম বিক্রি করা শুরু হবে। উক্ত দিনের পর থেকে আপনি গ্রামীণফোনের কোন কাস্টমার সেন্টার অথবা জিপি অনলাইন সবথেকে তা অনলাইনে অর্ডার করতে পারবেন।

গ্রামীণফোন ই-সিমের দাম কত?

গ্রামীণফোন মোবাইল অপারেটর দেওয়া সূত্র মতে আগামী 7 এ মার্চ থেকে পাওয়া যাবে তবে এখন পর্যন্ত এই সিমের দাম সম্পর্কে কোনো তথ্য জানানো হয়নি। তবে বিভিন্ন সূত্র মতে ধারণা করা হচ্ছে এসির দাম 200 টাকার মত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে আশা করা যাচ্ছে 7 তারিখের পূর্বেই অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে এই সিমের দাম উল্লেখ করে একটি ফিচার প্রকাশ করা হবে।

বর্তমান সিম ই-সিম কনভার্ট করার নিয়ম

গ্রামীণফোন গ্রাহকদের মনে এখন একটি প্রশ্ন যে আপনারা যে সাধারণ সিম ব্যবহার করছেন তা ই-সিম পরিণত করা যায় তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে আপনি নিকটস্থ গ্রামীণফোন কাস্টমার সেন্টার অথবা সিম বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন করে তাদের সাথে যোগাযোগ করে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র ব্যবহার করে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে ই-সিম রূপান্তর করতে পারেন। তবে এজন্য আপনাকে 200 টাকা চার্জ প্রযোজ্য হতে হবে তবে আপনি যদি স্টার গ্রাহক হয়ে থাকেন তাহলে এই সিম রিপ্লেসমেন্ট বিনামূল্যে করতে পারবেন।

ই-সিম থেকে কি আবার প্লাস্টিকের সিমে ফেরত যাওয়া যাবে?

গ্রামীনফোন ব্যবহারকারীদের সুখবর কেননা আপনি চাইলে আপনার এই সিম বাদ দিয়ে আবার প্রচলিত প্লাস্টিকের সিম কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে নিকটস্থ গ্রামীণফোন সেন্টার কাস্টমার কেয়ার অথবা অনুমোদিত বিক্রয় কেন্দ্রে যোগাযোগ করতে হবে। বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে আপনাকে পুনরায় আপনার প্লাস্টিক সিম কার্ড রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তবে মনে রাখবেন আপনি যদি একজন গ্রামীণফোনের গ্রাহক হয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে ফ্রিতে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা হবে।

কোন কোন ফোনে ই-সিম ব্যবহার করা যাবে?

আমাদের দুজনের মধ্যে অনেকেই আপনাদের মধ্যে অনেকেই জানতে চেয়েছেন যে কোন কোন ডিভাইস গুলোতে এটি ব্যবহারের উপযোগী। তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে অ্যাপেল স্যামসাং ও গুগোল পিক্সেল স্মার্টফোনগুলোতে সাধারণত একটি সিম এর ব্যবস্থা রয়েছে। এ সকল মোবাইল কোম্পানিগুলো স্মার্টনেসের দিক দিয়ে অনেক এগিয়ে ।তাই সকলের কিছু কিছু মডেল রয়েছে এই মডেলের তালিকা নিচের অংশে প্রকাশ করা হলো যেগুলোতে সিম ব্যবহার করা সম্ভব।

Screenshot-2022-03-02-at-7-17-58-PM


Screenshot-2022-03-02-at-7-18-07-PM
Screenshot-2022-03-02-at-7-18-17-PM
আশা করা যাচ্ছে গ্রামীণ ফোনের কোম্পানির পাশাপাশি অন্যান্য টেলিকমিউনিকেশন অপারেটরগুলো তাদের গ্রাহকদের জন্য ব্যবহার করবে। সুতরাং আপনি অন্যান্য ক্ষেত্রে তথ্য গুলো পেতে আমাদের ওয়েবসাইটের সাথে থাকুন আমরা গ্রামীণফোন বাংলালিংক এয়ারটেল সহ অন্যান্য যেকোনো মোবাইল অপারেটরের সকল আপডেট খবর এখানে দিয়ে থাকি।

গ্রামীণফোন মোবাইল কোম্পানির হাত ধরেই এই ডিজিটাল সিম পদ্ধতি চালু হচ্ছে এবং ধাপে ধাপে প্রতিটি মোবাইল অপারেটর তাদের এই সেবাটি চালু করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে তাদের মাধ্যমে আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে।