ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসা আবেদনের নিয়ম ২০২২ – ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসা ফরম বাংলাদেশ

আপনি যদি চিকিৎসার জন্য ইন্ডিয়া যেতে চান তাহলে আপনার ইন্ডিয়াতে যাওয়ার জন্য চিকিৎসা বা মেডিকেল ভিসার প্রয়োজন। টুরিস্ট ভিসার মাধ্যমে সাধারণত নরমাল চিকিৎসা যেমন ডাক্তার দেখানো বা কিছু টেস্ট ইত্যাদি করা সম্ভব। তবে বড় ধরনের কোনো চিকিৎসা সেবা পাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই মেডিকেল ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। আজকে আমরা আপনাদের দেখাবো কিভাবে ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসার জন্য আবেদন করতে হয় এবং আবেদন ফরম কোথায় পাওয়া যাবে তার বিস্তারিত সকল তথ্য তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

ভারতীয় মেডিকেল ভিসার আবেদন প্রক্রিয়া টুরিস্ট ভিসার আবেদনের মতোই। তবে দুটো কাগজ অতিরিক্ত লাগে তাই সভার শুরুতে আপনাকে আমরা মেডিকেল ভিসা করার জন্য কি কি কাগজপত্র দরকার হয় এবং কোন কোন বিষয়ের দিকে লক্ষ্য রাখতে হয় তা আলোচনা করলাম।

প্রাথমিক বিষয়

প্রথমে একটি বিষয় আপনাকে জানতে হবে যে আপনি যখন ইন্ডিয়া ডাক্তার দেখাতে বা চিকিৎসার জন্য যাবেন তখন আপনি কোনোভাবেই সেখানে একা যেতে পারবেন না। সাধারণত রোগী তার সাথে কোনো আত্মীয়-স্বজন বা পূর্বের চিকিৎসা ভিসায় ইন্ডিয়া ভ্রমণ করে গেছে এমন ব্যক্তির সাথে চলাচল করে।

ইন্ডিয়াতে আপনি যেভাবে যান না কেন আপনার ভিসা অত্যন্ত জরুরী রোগী হিসেবে মেডিকেল ভিসার এটেনডেন্ট এর মেডিকেল ভিসা নির্বাচন করে আপনাকে জমাদান করতে হবে।

ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

আলোচনার এই অংশে আমরা আপনাদের দেখাবো ভারতের মেডিকেল ভিসার আবেদন করতে কোন কোন কাগজপত্র আপনার অপরিহার্য। মনে রাখবেন এখানে দেওয়া তালিকায় যে সকল কাগজপত্র জমা দিতে বলা হবে আপনাকে অবশ্যই সেগুলো অতি স্বল্প সময়ের মধ্যে সংগ্রহ করতে হবে।

Screenshot-2022-03-23-at-9-13-09-AM

  • আবেদনকারী ও এটেনডেন্ট এর ই-পাসপোর্ট।
  • এককপি ২x২ ইঞ্চি মাপের প্রিন্টেড ছবি ও আরেকটি সফট কপি (শুধু অনলাইন আবেদনের সময় লাগবে)।
  • আপনি অনলাইনে যে আবেদন ফরম পূরণ করেছেন তার প্রিন্ট কপি।
  • স্মার্ট কার্ড অথবা জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।
  • ইউটিলিটি বিল এর ফটোকপি বিদ্যুৎ ও টেলিফোন বিল এর ফটোকপি।
  • প্রমানপত্র বেসরকারি চাকরিজীবী হলে এনওসি সরকারি চাকরিজীবী হলে আপনার প্রতিষ্ঠান আইডি কার্ড ব্যবসায়ী হইলে আপনার ব্যবসায়িক ট্রেড লাইসেন্স এর ফটোকপি এবং পেশা যদি হয় তাহলে জমির খতিয়ান এর ফটোকপি জমা দিতে হবে।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট, ডলার এনডোর্সমেন্ট অথবা ইন্টারন্যাশনাল কার্ডের কপি।
  • পাসপোর্ট এর ডাটা পেজের ফটোকপি।
  • সর্বশেষ ইন্ডিয়ান ভিসার ফটোকপি যদি আপনি পূর্বে ভ্রমণ করে থাকেন এ ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।
  • অন্য কোন সাপোর্টিং কাগজ যদি দিতে চান তাহলে তা সংযুক্ত করতে পারেন।
  • পূর্ববর্তী সকল পাসপোর্ট যদি পুরাতন পাসপোর্ট থাকে তাহলে অবশ্যই দিতে হবে আর যদি হারিয়ে যায় তাহলে থানায় জিডি করার কপি ও সার্টিফিকেট আনতে হবে।
  • নির্দিষ্ট তারিখ ইন্ডিয়ান ডাক্তারের এপয়েন্টমেন্ট লেটার।
  • সাম্প্রতিককালে যেসকল ডাক্তার দিয়ে আপনি নিজে চিকিৎসা করিয়েছেন তার সকল প্রেসক্রিপশন রিপোর্ট এর ফটোকপি ও অরিজিনাল কপি।

উপরের তালিকা দেখে আপনি ইতিমধ্যে বুঝে গিয়েছেন যে আপনার আবেদনের জন্য কি কি কাগজপত্র দরকার হবে এখন শুধু ডাক্তারের এপয়েন্টমেন্ট লেটার তো আপনাকে ম্যানেজ করতে হবে আপনি কোন হাসপাতালে কোন ডাক্তার দেখাতে চান সেগুলো জানা থাকলে নিজেই হয়তো অনলাইনে ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করে নিয়ে নিতে পারবেন।

ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসা ফরম বাংলাদেশ

ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসা ফরম পূরণ করার একটি নির্দিষ্ট নিয়ম রয়েছে শুধু মেডিকেল ভিসা ফরম পূরণ করার দিকে খেয়াল রাখতে হবে এখানে শুধু আবেদনের শুরুতে মেডিকেল ভিসার জন্য ওমানের ভিসা আবেদনের জন্য আপনাকে ভিসার ধরন সিলেক্ট করতে হবে আর রোগীর সাথে যে ব্যাক্তি যাবেন তার মেডিকেল অ্যাটেনডেন্স নির্বাচন করতে হবে।

যারা মেডিকেল ভিসার আবেদন ফরমের জন্য অনলাইনে খুঁজে চলেছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে আমরা আবেদন ফরম এখানে প্রকাশ করেছি যে আপনি খুব সহজেই সংগ্রহ করতে পারবেন এবং তা ব্যবহার করে আপনার আবেদন সম্পূর্ণ করতে পারবেন।

ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসা খরচ ২০২২

।আপনি যদি মনেপ্রাণে ইন্ডিয়ান ভিসার জন্য আবেদন করতে আগ্রহী হন তাহলে অবশ্যই আপনি জানতে আগ্রহ প্রকাশ করবেন ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসা খরচ কত ইন্ডিয়ান মেদিক্যাল ভিসা আবেদনের খরচ বাবদ 800 টাকা ও কিছু প্রসেসিং সারসহ বলতে পারেন 850 টাকার মতো খরচ করা হয়। ইন্ডিয়ান ভিসার জন্য বাংলাদেশিদের কোন ফি প্রদান করা লাগে না তবে আই হ্যাভ মানে ভিসা আবেদন কেন্দ্র আবেদন প্রসেস করতে সাধারণত অধিগ্রহণ করা হয়।

দোকান বা এজেন্সি থেকে আবেদন করা ইন্ডিয়ান ডাক্তারের এপয়েন্টমেন্ট দেওয়া ছবি তোলা প্রিন্ট দেওয়া এসব কাজে এজেন্সির বা কম্পিউটারের দোকানে আপনার আলাদা করে কিছু খরচ হতে পারে।

ইন্ডিয়ান ভিসা পেতে কতদিন লাগে?

কাগজপত্র যদি আপনি সঠিকভাবে জন্মদান করতে পারেন তাহলে এক সপ্তাহের মধ্যেই আপনাকে পাসপোর্ট ফেরত দেয়া হবে। আমারে জানায় গত 26 শে মার্চ 2022 তারিখে তার বাবার জন্য ভিসার আবেদন জমা দিয়েছিলেন। মাত্র 6 দিনের মধ্যে তাঁকে পাসপোর্ট ফেরত দেওয়া হয় এবং দুজনের বিচারকাজ সম্পন্ন হয়েছে তাহলে আপনি বুঝতে পেরেছেন যে কত দ্রুত ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসার জন্য কাজ করা হয়।

মেডিকেল ভিসার মেয়াদ কতদিন? 

আপনার মনে প্রশ্ন থাকতে পারে মেদিক্যাল ভিসা করলে আপনি মেয়াদ কতদিন পাবে সাধারণত মেডিকেল ভিসা তিন থেকে ছয় মাসের জন্য করা হয়ে থাকে।

আমরা আশা করবো আপনি সহজেই ইন্ডিয়ান মেডিকেল ভিসার আবেদন করতে পেরেছেন। পাশাপাশি আবেদন করতে কি কি তথ্য দরকার হয় তা সম্পর্কে জানতে পেরেছেন এর বাইরে যদি কোনোকিছু আপনার জানার থাকে তাহলে নিচের কমেন্ট বক্সে আপনি অবশ্যই তা লিখবেন আমরা আপনার কমেন্টের জবাব দেয়ার যথাসাধ্য চেষ্টা করব।