ট্যাপ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২

বিকাশ, নগদ, রকেট এসকল মোবাইল ব্যাংকিং এর পাশাপাশি বাংলাদেশের নতুন একটি মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু হয়েছে। ট্রাস্ট অজিয়াটা পে (সংক্ষেপে ট্যাপ বা TAP) এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবা টি গত বছর থেকে চালু হয়েছে। অসাধারণ সব ফিচারের পাশাপাশি মোবাইল ব্যাংকিং সেবা তার গ্রাহকদের বিশেষ সুযোগ-সুবিধা প্রদান করছে তাই আপনারা যারা ট্যাপ অ্যাকাউন্ট খুঁজে চলেছেন তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই আমরা এখানে একাউন্ট কিভাবে খুলবেন এবং তার সুবিধাসমূহ এখানে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

ট্যাপ কি?

আপনারা হয়তো ট্রাস্ট ব্যাংক সম্পর্কে অনেকে জানেন এই জনপ্রিয় বেসরকারি ব্যাংকের শাখা হিসেবে ট্যাপ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু হয়েছে। বিকাশ নগদ রকেট ইত্যাদি মোবাইল ব্যাংকিং গুলোর মতই ই-ব্যাংকিং সেবা টি আপনি মোবাইল থেকেই দ্রুত সময়ের মধ্যেই টাকা লেনদেন করতে পারবেন।

রেজিস্ট্রেশনের পর ব্যবহারকারীর ফোন নাম্বারকে ওয়ালেট নাম্বার হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। মোবাইলের ডায়াল মেন্যু এবং অ্যাপ, দুইভাবেই ব্যবহার করা যাবে TAP বা ট্যাপ।

ট্যাপ একাউন্ট এর সুবিধাসমুহ

ট্যাপ একাউন্ট খোলার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই এই মোবাইল ব্যাংকিং এর বিশেষ সুবিধা সমূহ সম্পর্কে জানা জরুরি এ লক্ষ্যেই নতুন এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবার অফিশিয়াল ওয়েবসাইট এবং কর্মচারী দেওয়া তথ্যমতে আমরা এখানে সুবিধা নিয়ে আলোচনা করেছি।

  • ই-ব্যাংকিং সেবা ব্যবহার করে আপনি এ দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তের যেকোন ট্যাপ মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহারকারীর নাম্বারে টাকা লেনদেন করতে পারবেন। অর্থাৎ মানি ট্রান্সফারের ক্ষেত্রে এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবা টি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
  • আপনার একাউন্টে যে পরিমাণ টাকা জমা থাকবে অথবা আপনি যে পরিমাণ টাকা লেনদেন করতে পারবেন তা নিকটস্থ ট্যাপ কাস্টমার অথবা এদের সার্ভিস থেকে ক্যাশ আউট করার সুবিধা পাবেন।
  • এ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে আপনি দ্রুত সময়ের মধ্যে আপনার মোবাইলে টাকা শেষ হয়ে গেলে মোবাইল রিচার্জ করার সুবিধা পাচ্ছেন।
  • একাউন্ট খোলার ক্ষেত্রে আপনাকে কোন ধরনের জাতীয় পরিচয় পত্রের অর্থাৎ এনআইডি তথ্য প্রদান করা লাগছে না তাই আপনি নির্ভয় এ একাউন্ট চালু করতে পারেন।
  • দেশের যেকোনো সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংক থেকে এই মোবাইল ব্যাংকিং সেবা তে আপনি অ্যাড মানি করতে পারেন
  • দেশের বিভিন্ন ধরনের পেমেন্ট যেমন টিউশন ফি, ইন্সুরান্স পেমেন্ট, মার্চেন্ট পেমেন্ট. ইউটিলিটি বিল পেমেন্ট ইত্যাদি পেমেন্ট গুলো মুহূর্তের মধ্যেই করতে পারবেন।

ট্যাপ একাউন্ট খুলতে কি কি প্রয়োজন?

উপরের দেওয়া সুবিধাগুলো যদি আপনি পেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনি চাইবেন ট্যাপ একাউন্ট খুলতে তাই আপনাকে বেশ কিছু কাগজপত্র জোগাড় করতে হবে এ একাউন্ট খোলার জন্য যা আমরা এখানে উপস্থাপন করেছি।

  • আপনাকে অবশ্যই একজন বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে ।
  • ব্যবহারকারীর বয়স অবশ্যই 18 বছরের বেশি হওয়া প্রয়োজন।
  • ভ্যালিড জাতীয় পরিচয় পত্র থাকা জরুরি।
  • রবি এয়ারটেল গ্রামীণফোন টেলিটক বাঙালিনক যেকোনো মোবাইল অপারেটরের একটি সচল সিম থাকতে হবে।

ট্যাপ একাউন্ট খোলার নিয়ম

আলোচনার এই অংশে আমরা আপনাদের দেখাবো কিভাবে একটি ট্যাপ একাউন্ট সহজেই খোলা যায়। আপনি ঘরে বসে থেকে অথবা ট্যাপের যেকোন এজেন্ট এর সাথে যোগাযোগ করে আপনার অ্যাকাউন্ট খুলে নিতে পারেন। তবে একাউন্ট খোলার পূর্বে আপনাকে উপরের দেওয়া সকল তথ্য গুলো থাকা অত্যন্ত জরুরী।

  • প্রথমে আপনাকে গুগল প্লে স্টোরে প্রবেশ করতে হবে এবং সার্চ বক্সে TAP লিখে সার্চ করুন যে অফিশিয়াল মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন টি আপনার সামনে উপস্থিত হবে তা ইন্সটল করুন।
  • অ্যাপ টি ওপেন করে গেট স্টার্টেড অপশনে ক্লিক করুন।
  • ফাঁকা জায়গায় আপনার ফোন নাম্বারটি লিখুন এবং আপনি যে মোবাইল অপারেটর ব্যবহার করে থাকেন রবি গ্রামীণফোন এয়ারটেল টেলিটক বাঙালিনক তা নির্বাচন করুন।
  • আপনার মোবাইল নাম্বারে একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড প্রেরণ করা হবে তা যথাযথভাবে ফাঁকা স্থানে লিখুন।
  • নিচের দিকে Scroll করে সম্মতি সূচক Agree অপশনে ক্লিক করুন।
  • পরবর্তী ধাপে আপনার থেকে বেশ কিছু তথ্য যা হবে আপনার নাম লিঙ্গ ও পেশা লিখে পরবর্তী ধাপে চলে যান।
  • Lets Continue চাপুন।
  • এরপর আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের সামনের অংশের ছবি তুলুন এবং কনফার্ম অপশনে ক্লিক করুন।
  • আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের অপর পাতার ছবি তুলুন এবং পুনরায় কনফার্ম করুন।
  • মনে রাখবেন আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি যদি স্পষ্ট হয়ে থাকে তাহলে কর্তৃপক্ষ আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র কে গ্রহণ করবে এবং আপনাকে পরবর্তী ধাপে যাওয়ার সুযোগ দেবে।
  • আপনার দেওয়া তথ্যগুলো যাচাই করুন যদি সঠিক হয়ে থাকে তাহলে কনফার্ম অপশনে ক্লিক করুন।
  • এরপর আপনার নিজের ছবি তোলার জন্য সেলফি ক্যামেরা চালু করুন এবং চোখ খোলা রেখে আপনার সেলফি তুলুন।
  • সেলফি তোলা সম্পন্ন হলে কনফার্ম অপশনে ক্লিক করুন।
  • কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে আপনার দেওয়া তথ্যগুলো ভেরিফাই করা হবে।
  • আপনার দেওয়া তথ্যগুলো যদি সঠিক হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে লগইন পেজে প্রবেশ করানো হবে।
  • লগিন পেজে আপনার ট্যাপ একাউন্ট এর নাম্বার ও পিন কোড দিয়ে লগিন করুন।

ট্যাপ মোবাইল ব্যাংকিং কোড

আপনার অ্যাকাউন্ট চালু করা হয়েছে আপনি চাইলে আপনার মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে একাউন্ট সচল রাখতে পারবেন। পাশাপাশি বেশকিছু ইউএসএসডি কোড রয়েছে যে সকল কোড ডায়াল করার মাধ্যমে আপনি টাকা লেনদেন ও মোবাইল রিচার্জ করতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক টেপ মোবাইল ব্যাংকিং এর কোড সমূহ গুলো।

ট্যাপ একাউন্টে প্রবেশ করার জন্য আপনি আপনার মোবাইলের ডায়াল প্যাড অপশনে গিয়ে *733# ডায়াল করে ট্যাপ মোবাইল মেন্যু অ্যাকসেস করা যাবে।

ট্যাপ ক্যাশ ইন চার্জ

দেশের অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবার চেয়ে টেপ মোবাইল ব্যাংকিং সেবা তাদের গ্রাহকদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে চলেছে বিশেষ করে ক্যাসিনো ক্যাশ আউট এর ক্ষেত্রে আপনি সাধারণত এত স্বল্প রেটে কোন মোবাইল ব্যাংকিং আপনাকে চার্জ কাটবে না।

সাধারণ ট্যাপ একাউন্টে এজেন্টের কাছ থেকে ক্যাশ ইন করা যাবে বিনামূল্যে। আবার বেতন বা করপোরেট ক্যাশ ইন এর ক্ষেত্রে ০.৯০ শতাংশ ক্যাশ ইন চার্জ গৃহিত হবে। স্টুডেন্ট একাউন্ট এর ক্ষেত্রে ট্যাপ এর ক্যাশ ইন চার্জ ০.৬০ শতাংশ।

Screenshot-2022-03-19-at-2-39-19-PM

ট্যাপ ক্যাশ আউট চার্জ

দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যেকোন একাউন্টে আপনি চাইলেই টাকা লেনদেন করতে পারবেন তবে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার নিয়ম অনুসারে আপনাকে বেশ কিছু টাকা চার্জ হিসেবে ধরা হবে। মোবাইল মেন্যু ব্যবহার করে এজেন্ট এর কাছ থেকে ট্যাপ ক্যাশ আউট করলে ১.৮০ শতাংশ চার্জ প্রযোজ্য হবে। অ্যাপ ব্যবহার করে ক্যাশ আউট চার্জ ১.৫০ শতাংশ।