আইপিএলে আফ্রিদির দাম ২০০ কোটি! ট্রোলের শিকার পাকিস্তানি সাংবাদিক

বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ক্রিকেট লিগ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ তথা আইপিএল। যে লিগে অবশ্য খেলার সুযোগ পান না পাকিস্তানের কোনও খেলোয়াড়। তবে দেশটির সময়ের সেরা পেসার শাহীন শাহ আফ্রিদি আইপিএল নিলামে অংশ নিলে তাঁর দাম ২০০ কোটি টাকা উঠত বলেই দাবি করলেন পাকিস্তানের এক সাংবাদিক। 

এমনই অদ্ভুত এবং হাস্যকর দাবির প্রেক্ষিতে নেট মাধ্যমে যারপরনাই ট্রোলের শিকার হয়েছেন ইহতিশামুল হক নামের ওই পাকিস্তানি সাংবাদিক। শাহীন আফ্রিদির মতো ক্রিকেটার আইপিএলে খেললে নিঃসন্দেহে প্রচুর টাকা দাম পেতেন। এ বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করবেন না কেউই। তাই বলে কোন যুক্তিতে ২০০ কোটি টাকা দাম উঠতে পারত বলে মনে হল সংশ্লিষ্ট পাক সাংবাদিকের, সেটা একমাত্র তিনিই বলতে পারবেন।

 

আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলওকে যেখানে দল গড়ার জন্যই বেঁধে দেয়া হয় ৯০ কোটি টাকার স্যালারি পার্স। আর সেই টাকায় অন্তত ১৮ জন ক্রিকেটারকে দলে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। সেখানে একজন ক্রিকেটারের দামই কিনা ২০০ কোটি টাকা! ভাবা যায়?

 

টুইটারে এমন মন্তব্য করার পর স্বাভাবিকভাবেই নেটিজেনদের একচেটিয়া বিদ্রুপের মুখে পড়তে হয় ইহতিশামুল হক নামের ওই সাংবাদিককে। মজাদার সব মন্তব্য উড়ে আসতে থাকে ইহতিশামের টুইটের প্রতিক্রিয়ায়।

 

‘নীচে সে টপার’ নামের এক টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে শাহিন আফ্রিদির সম্ভাব্য দাম ২০০ কোটি টাকার প্রতিক্রিয়ায় লেখা হয়, ‘তাহলে ভালো হয়, শাহিন আফ্রিদিকে বিশ্বব্যাঙ্কের হাতে দিয়ে দিন এবং আপনার দেশের দেনা শোধ করে দিন।’

 

রঞ্জন নামে এক টুইটার ব্যবহারকারী লেখেন, ‘বলছেন কী ভাই! ২০০ কোটিতে তো গোটা পাকিস্তানের নিলাম হয়ে যাবে।’ প্রিন্সজি নামক টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে লেখা হয়, ‘২০০ কোটিতে কতগুলো শূন্য বসে, কোনও ধারণা আছে?’

 

সৃজিত পানিকর নামের এক ব্যক্তি লেখেন, ‘মূর্খতার যেন শেষ নেই। প্রতিটি ফ্র্যাঞ্চাইজি যেখানে মাত্র ৯০ কোটি খরচ করতে পারে এবং তা দিয়ে অবশ্যই ১৮ জন খেলোয়াড়কে নিতে হবে। তাই আপনি যদি ২০ লাখ মূল্যে ১৭ জন খেলোয়াড় কেনেন, তবুও আপনি একজন খেলোয়াড়ের জন্য ৮৭ কোটির বেশি খরচ করতে পারবেন না। এই বন্ধুটি সম্ভবত মনে করে যে, ২-৩টি ফ্র্যাঞ্চাইজি ম্যাচ ফিক্স করতে পারে এবং আফ্রিদিকে কিনতে সমষ্টিগতভাবে ২০০ কোটি খরচ করতে পারে!