উদ্বোধন হতেই টিকটকের কেন্দ্রে পরিণত পদ্মা সেতু

স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে। রোববার (২৬ জুন) ভোর ৬টা থেকে সব ধরনের যান চলাচল শুরু হয় বহু প্রতীক্ষিত এই স্থাপনার ওপর দিয়ে। 

 

অনেকেই গভীর রাতে থেকে শরীয়তপুরের জাজিরা টোল প্লাজার সামনে এসে অপেক্ষায় থাকেন। পরে নির্ধারিত সময়ে সেই অপেক্ষার পালা শেষ হয়। এদিকে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে উৎসুক জনতার ভিড়। ইতোমধ্যে এক নারী টিকটকারের মনোমুগ্ধকর নাচের দৃশ্য ভাইরাল হয়েছে। তাৎক্ষণিক ওই নারীর নাম পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি।

 

সামাজিক যোগযোগের মধ্যম ফেসবুকে টিকটকারের ভাইরাল ভিডিওতে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। ভিডিওটি শেয়ার করে এমআই মোমিন নামে একজন লিখেছেন সেতুর ওপর টিকটক শুটিং শুরু হয়ে গেছে। নির্দেশ বড়ুয়া নামে অপর নেটিজেন মন্তব্য করেছেন, এদের কাছ জরিমানা স্বরূপ অতিরিক্ত টোল আদায় করা জরুরি। আরিফ সরকার লিখেছেন, মানসিক ভারসাম্যহীন সব টিকটক প্রতিবন্ধী। তুহিন লিখেছেন, এদেরকে পাবনা মানসিক হাসপাতালে রেখে দেয়া দরকার।

 

প্রথম পদ্মা সেতু পারাপার হওয়ায় অনেকেই আনন্দ-উল্লাস প্রকাশ করেছেন। দূর-দূরান্ত থেকে লোকজন ছুটে এসেছে কালের সাক্ষী হতে। উচ্ছ্বাস করতে দেখা গেছে তাদের। দীর্ঘ দিনের নদী পথের ভোগান্তির শেষ পদ্মা সেতুকে সক্ষমতার প্রতীক হিসেবে দেখছেন যাত্রী ও পরিবহন চালকরা। নির্ধারিত মূল্যে টোল দিয়ে সেতু পার হয়ে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সাধারণ মানুষের মধ্যে ছিল উৎসব। অনেকেই মোটরসাইকেল নিয়ে পদ্মা নদী পার হচ্ছেন।