পাকিস্তানের বল পায়ে বিশ্বকাপ মাতাবেন মেসি-নেইমাররা

বিশ্বকাপ শুরুর আর ৫ মাসও বাকি নেই। তার পরই ফুটবলের মহাযজ্ঞে বিশ্বসেরার মুকুট জয়ের মিশনে নামবেন লিওনেল মেসি, নেইমার, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোরা। তবে এর অনেক আগেই ম্যাচবল, মাসকট উন্মোচন করে ফেলেছে আয়োজক কাতার। বিশ্বকাপে যে বল দিয়ে খেলা হবে, তার নাম আল রিহলা। সেই বলগুলো আবার তৈরি করেছে পাকিস্তান। 

 

সম্প্রতি সিয়ালকোট চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এসসিসিআই) এর জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি শেখ জোহাইব রফিক শেঠি জানিয়েছেন বিষয়টি। সিয়ালকোটে বানানো আল রিহলা ফুটবল দিয়েই খেলা হবে কাতারে অনুষ্ঠেয় ২০২২ ফিফা বিশ্বকাপে। 

 

সম্প্রতি সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এসসিসিআই নেতা বলেন, সিয়ালকোটভিত্তিক এক কারখানায় বানানো হয়েছে এই ফুটবলগুলো, যা আনুষ্ঠানিকভাবে ফিফা বিশ্বকাপে ব্যবহার করা হবে। তার মতে, এই কারণে বিশ্বজুড়ে পাকিস্তানের এই শহরের মর্যাদা বেড়ে যাবে বহুগুণে।

 

রফিক জানান, ‘ফরোয়ার্ড স্পোর্টস’ নামক এই প্রতিষ্ঠান এই নিয়ে তৃতীয়বারের মতো বিশ্বকাপে ফুটবল সরবরাহ করতে যাচ্ছে। তিনি বলেন যে, বিশ্ব ক্রমেই পরিবেশ সচেতনতার দিকে ঝুঁকছে, এই বল বানানোর সময় খেয়াল রাখা হয়েছিল সেদিকেও। এই বল বানাতে ব্যবহার করা হয়েছে জৈব ও পুনর্ব্যবহৃত উপাদান ব্যবহার করা হয়েছে। এই বল বানাতে কোনো দ্রাবক রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়নি, বরং পানি-ভিত্তিক রাসায়নিক ব্যবহার করা হয়েছে, যা পরিবেশ দূষিত করবে না।

 

তিনি জানান, ২০ প্যানেল বিশিষ্ট এই বল বিশ্বের সেরা বল হিসেবে ঘোষিত হয়। ঐতিহ্যগতভাবে বিশ্বকাপের ফুটবল হাতে সেলাই করা হতো। তবে ২০১৪ সালের বিশ্বকাপে থার্মোস বাইন্ডিংয়ের বল ব্যবহার করা হয়। এরপর রাশিয়া বিশ্বকাপেও একই ধরনের বল ব্যবহার করা হয়। এবারের বিশ্বকাপ বলগুলোও একইভাবে তৈরি।