সতীর্থকে খুন করতে চেয়েছিলেন মেসি

লিয়ান্দ্রো পারেদেসের সঙ্গে লিওনেল মেসির দারুণ সম্পর্ক। জাতীয় দলে আগে থেকেই একসঙ্গে খেলেন তারা, গত মৌসুম থেকে ক্লাব পর্যায়েও সতীর্থ। সম্প্রতি মেসির সঙ্গে তার সম্পর্কের ব্যাপারে আলোকপাত করতে গিয়ে এক চমকপ্রদ তথ্য জানিয়েছেন পারেদেস, দুই মৌসুম আগে নাকি তাকে খুন করতে চেয়েছিলেন মেসি!

 

ঘটনাটা ২০২০-২১ মৌসুমের, মেসি তখনও বার্সেলোনার হয়ে খেলছেন, আর পারেদেস মাঠ মাতাচ্ছেন পিএসজির জার্সিতে। সেই মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোয় পিএসজির মুখোমুখি হয়েছিল বার্সেলোনা এবং পিএসজি। প্রথম লেগে কিলিয়ান এমবাপের জাদুকরি পারফরম্যান্সে মেসির গোলের পরও ৪-১ গোলে হেরে যায় বার্সা। দ্বিতীয় লেগ ১-১ গোলে ড্র হলে দুই লেগ মিলিয়ে ৫-২ এ পিছিয়ে থেকে বাদ পড়ে যায় কাতালান ক্লাবটি।

 

প্রথম লেগের সময় ন্যু ক্যাম্পে পিএসজির সতীর্থদের সঙ্গে কোনো এক বিষয়ে আলাপ করছিলেন পারেদেস। সেই আলাপের বিষয় শুনেই নাকি চটে গিয়েছিলেন মেসি। টিভি চ্যানেল কায়া নেগ্রার সঙ্গে সাক্ষাৎকারে বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন পারেদেস,‘মেসি রেগে গিয়েছিল। কারণ আমি সতীর্থদের কাছে একটা মন্তব্য করেছিলাম যেটি সে (মেসি) শুনে ফেলে এবং ক্ষেপে যায়। সত্যিই সে অনেক রেগে গিয়েছিল। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ ছিল যে, সে আমাকে খুন করতে চেয়েছিল আর আমি বাড়ি ফিরতে চাইছিলাম।’

 

পারেদেস অবশ্য দাবি করেছেন, ওই ঘটনা মাঠেই শেষ হয়ে গিয়েছিল। এর কিছুদিন বাদে আর্জেন্টিনার ক্যাম্পে যখন ফের দেখা হয় দু’জনের, তখন নাকি পারেদসের প্রতি মেসির আচরণ দেখে ঘুণাক্ষরেও আঁচ করা সম্ভব ছিল না যে তাদের মধ্যে কোনো বাকবিতণ্ডা হয়েছিল। 

 

পারেদেস বলেন, ‘এরপর যখন জাতীয় দলে আমাদের দেখা হয় সে এমন ভাব দেখিয়েছিল যেন কিছুই হয়নি। মেসি আসলে কেমন মানুষ বুঝেছিলাম সেদিন। আমাদের সম্পর্কটা সবসময়ই ভালো ছিল। এখন যদি কখনো ওই প্রসঙ্গ ওঠে আমরা এটা নিয়ে হাসাহাসি করি। কিন্তু ওই সময় সে খুবই রাগান্বিত ছিল। আমাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিল সে!’