বৃষ্টিভেজা দিনে হয়ে যাক মাংস খিচুড়ি

বাঙালির বৃষ্টি মানেই পাতে চাই খিচুড়ি। আর তার সঙ্গে যদি হয় একটু মাংস ভুনা, তাহলে তো কথাই নেই। তাহলে আর দেরি কেনো! বৃষ্টিভেজা দুপুরে বানিয়ে ফেলুন গরুর মংস দিয়ে ভুনা খিচুড়ি। জেনে নিন কীভাবে রান্না করবেন।

 

মাংস রান্নার উপকরণ

গরুর মাংস- দেড় কেজি

হলুদের গুঁড়া- কোয়ার্টার চা চামচ

মরিচের গুঁড়া- ১ টেবিল চামচ

ধনিয়ার গুঁড়া- ১ টেবিল চামচ

জিরার গুঁড়া- ১ টেবিল চামচ

 

রসুন বাটা- দেড় টেবিল চামচ

আদা বাটা- দেড় টেবিল চামচ

পেঁয়াজ কুচি- ১ কাপ

সয়াবিন তেল- আধা কাপ

লবণ- স্বাদ মতো

 

গরম মসলার গুঁড়া- ২ চা চামচ

কাঁচা মরিচ- কয়েকটি

খিচুড়ি রান্নার উপকরণ

পোলাওয়ের চাল- ২ কাপ

মসুরের ডাল- ১ কাপ

মুগ ডাল- ১ কাপ

 

সয়াবিন তেল- আধা কাপ

তেজপাতা- ২টি

এলাচ- ৩/৪টি

লবঙ্গ- ৬/৭টি

দারুচিনি- ৩ স্টিক

 

পেঁয়াজ কুচি- আধা কাপ  

হলুদের গুঁড়া- আধা চা চামচ

লবণ- স্বাদ মতো

অন্যান্য উপকরণ

পেঁয়াজ বেরেস্তা- আধা কাপ

আস্ত কাঁচা মরিচ- কয়েকটি

ঘি- ২ টেবিল চামচ

 

প্রস্তুত প্রণালি

মাংসের সঙ্গে গরম মসলার গুঁড়া বাদে লবণসহ বাকিসব গুঁড়া ও বাটা মসলা মেখে নিন। চুলায় বসিয়ে দিন হাঁড়ি। মাংস থেকে বের হওয়া পানিতেই কষিয়ে নিন। হাঁড়ি ঢেকে দেবেন সেদ্ধ না হ্য়ও পর্যন্ত। মাঝে মাঝে নেড়ে দেবেন। প্রয়োজনে সামান্য পানি দিতে পারেন। সেদ্ধ হয়ে গেলে গরম মসলার গুঁড়া ও আস্ত কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন। তেল ভেসে উঠলে মাংস নামিয়ে নিন চুলা থেকে।

 

মুগ ডাল ভেজে নিন কম আঁচে। দুই ধরনের ডাল ও পোলাওয়ের চাল একসঙ্গে মিশিয়ে ধুয়ে স্টেইনারে রেখে দিন পানি ঝরে যাওয়ার জন্য। প্যানে তেল গরম করে গরম মসলা দিয়ে নেড়ে নিন। পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। পেঁয়াজ নরম হয়ে গেলে চাল ও ডালের মিশ্রণ দিন। হলুদের গুঁড়া ও লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ ভেজে ফুটন্ত গরম পানি দিয়ে দিন। চাল ও ডালের পরিমাণের দ্বিগুণ পানি দিতে হবে।

 

পানি একটু মাখো মাখো হয়ে গেলে মাংস দিয়ে নেড়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন প্যান। ঢাকনায় থাকা ছিদ্র বন্ধ করে দমে রাখুন ১০ মিনিট। পেঁয়াজের বেরেস্তা, ঘি ও আস্ত কাঁচা মরিচ দিয়ে নেড়ে আরও দশ মিনিট দমে রাখুন। পরিবেশন করুন গরম গরম মাংস খিচুড়ি।