‘পরাণ’ এ মজেছে দর্শক,রাজের অভিনয়ে মুগ্ধ সবাই

করোনা-পরবর্তী সময়ে সিনেমা হলে দর্শক টানা নির্মাতাদের জন্য বেশ বড় একটা চ্যালেঞ্জ ছিল। কিন্তু এ চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়ে সফলও হয়েছেন শরিফুল রাজের ‘পরাণ’। গোটা বাংলাদেশ ছুড়ে ‘পরাণ’ ছবির অসামান্য সাফল্য এক ধাক্কায় অনেকটা দর্শক বাড়িয়ে দিয়েছে বাংলা সিনেমার। ‘পরাণ’-এর শরিফুল রাজের অভিনয়ের জাদুতে মুগ্ধ দর্শক। শুধু সাধারণ দর্শকই নয়, নিজেদের প্রতিভার জোরে প্রশংসা কুড়িয়ে নিয়েছেন চলচ্চিত্র সমলোচকদের কাছ থেকেও।

‘পরাণ’-এর প্রতিটি চরিত্র নিজের অভিনয়ের প্রেমে পড়তে বাধ‍্য করেছেন দর্শকে। বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনেতা শরিফুল রাজের প্রশংসা জোয়ারে রীতিমতো ভাসছে। চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের ভাষ্যমতে আগামী বাংলা সিনেমার তারকাদের তালিকায় প্রথম দিকে নাম থাকবে রাজের।দ্রুত সাফল‍্যের সিঁড়ি চড়ছেন তিনি।নামের সঙ্গে অনেক দিন আগেই জুড়েছে ‘মেধবী’ অভিনেতার তকমা‌।চলচ্চিত্রের আতুর ঘর এফডিসি পাড়া থেকে শুধু করে সবত্রই এখন শরিফুল রাজ চর্চা।

উল্লেখ্য,কোরবানির ঈদ উপলক্ষে মুক্তি পেয়েছে রায়হান রাফি পরিচালিত নতুন সিনেমা ‘পরাণ’। ত্রিকোণ প্রেমের গল্পে নির্মিত সিনেমাটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিদ্যা সিনহা মিম, শরিফুল রাজ ও ইয়াশ রোহান। ঈদের দিন মাত্র ১১টি হলে মুক্তি পেলেও দর্শকের চাহিদা ও প্রশংসার সুবাদে ইতোমধ্যে এই সিনেমার হলসংখ্যা বেড়েছে। শোনা যাচ্ছে, আগামী সপ্তাহে হলসংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে যাবে।

সত্য ঘটনার ছায়া অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে ‘পরাণ’। এর গল্পের সঙ্গে মিল রয়েছে বরগুনার বহুল আলোচিত রিফাত হত্যাকাণ্ডের ঘটনার। যদিও সিনেমা সংশ্লিষ্টরা সরাসরি সেটা স্বীকার করেননি। বরং এটাকে আশেপাশের ঘটনা থেকে অনুপ্রাণিত বলে অভিহিত করেছেন।