আমি এখন শক্ত থাকার চেষ্টা করছি: মৌসুমী

জনপ্রিয় অভিনেতা ডিপজলের বড় ছেলে অমির বিয়েতে জায়েদ খান-ওমর সানী দ্বন্দ্বের সূত্রপাত হয়।জায়েদ খানের বিরুদ্ধে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করার হুমকির অভিযোগ তোলেন ওমর সানী। এরপর স্ত্রী মৌসুমীকে নানাভাবে হয়রানিরও অভিযোগ তোলেন। এরপর স্বামীর বিরুদ্ধে মুখ খোলেন নায়িকা মৌসুমী। এরপর চলে মন্তব্য পাল্টা মন্তব্য।

স্বামী-স্ত্রীর কথায় অমিলে অধিকাংশই ধারণা করেন মৌসুমী-ওমর সানীর সংসারে ঝামেলা চলছে। সানী নিজেও জানান, তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা হচ্ছে না দীর্ঘদিন। যদিও এটিকে দাম্পত্য জীবনের স্বাভাবিক ঘটনা বলে দাবি সানীর। তাদের সন্তান ফারদিন বাবার পক্ষ নিয়ে পারিবারিক সমস্যা বলে বিষয়টি পারিবারিকভাবে সমাধান করবেন বলে জানান।

এরপর চিত্রনায়ক ওমর সানী গত বৃ্হস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে তার ভেরিফায়েড ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেন। ওই ছবিতে এক টেবিলে মুখোমুখি বসে খাবার খেতে দেখা যায় মৌসুমী-সানীকে। এর আগে একই বাড়িতে থেকেও গত চারমাস ধরে তাদের মধ্যে কথাবার্তা বন্ধ ছিলো বলে জানিয়েছিলেন সানী।

ওমর সানী ওই পোস্টের ক্যাপশনে লেখেন, ‘সবাই ভালো থাকবেন, দোয়া করবেন আমাদের জন্য।’

অন্যদিকে আজ শনিবার সকালে মৌসুমী তার ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্টে একটি পোস্ট দেন। মৌসুমী পোস্টে লিখেছেন, ‘বৃষ্টিতে ভিজে গেলাম, বৃষ্টিও বলে লিলি ফুল তোমার জন্য। ভিজতে ভিজতে কিছু কথা মনে হলো।কেনো এক সময় বলব যদি বেঁচে থাকি ইনশাআল্লাহ। খুব চেষ্টা করছি শক্ত থাকতে। কিন্তু অভিমানী মন বড় দুর্বল। নিজের দুর্বলতাটা অন্য কারো উপর চাপিয়ে কেউ ভালো থাকতে পারে না। কষ্ট আমি নিলাম সুখ তোমাকে দিলাম।”

গত ১০ জুন অভিনেতা ডিপজলের ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে চিত্রনায়ক জায়েদ খানের বিরুদ্ধে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করার হুমকির অভিযোগ তোলেন ওমর সানী। এ নিয়ে শিল্পী সমিতিতে অভিযোগও করেন তিনি। ওই অভিযোগে জায়েদ খানের বিরুদ্ধে তাকে গুলি করার হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি স্ত্রী মৌসুমীকে নানাভাবে হয়রানির বিষয়ও তুলে ধরেন সানী।

গত ১৩ জুন ওমর সানীর অভিযোগের বিপক্ষে গিয়ে মৌসুমী সংবাদমাধ্যমে অডিও বার্তা দেন। সেখানে ওমর সানীর সব অভিযোগ অস্বীকার করে জায়েদ খানের পক্ষে কথা বলেন মৌসুমী।

পরে এই দম্পতির ছেলে ফারদিন গণমাধ্যমকে জানান, তার বাবার অভিযোগ সত্য। জায়েদ খান তার মাকে হয়রানি করেন। শুধু তাই নয়, তাদের ব্যবসাতেও ঝামেলা পাকিয়েছেন জায়েদ খান।

তবে অভিযোগের বিষয় পুরোটা অস্বীকার করে জায়েদ বলেন, এটা মিথ্যা খবর।

এমন পাল্টাপাল্টি সব ঘটনার মধ্যে এক অডিও বার্তায় মৌসুমী বলেন, ‘জায়েদ খানের কোনো দোষ নেই।