মাধুরীর বিয়ের খবর শুনে হাউমাউ করে কেঁদেছেন দীপিকার বাবা

দিনটা ছিল ১৯৯৯ সালের ১৭ অক্টোবর। কোটি কোটি পুরুষ ভক্তের হৃদয় ভেঙে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিত। কোনো তারকা কিংবা ব্যবসায়ী নয়, জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নেন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. শ্রীরাম নেনে’কে। প্রায় দুই যুগ ধরে সুখে-শান্তিতে সংসার করে যাচ্ছেন তারা।

 

মাধুরীর বিয়েতে কষ্ট পাওয়া কোটি ভক্তের মধ্যে ছিলেন প্রকাশ পাডুকোন। যিনি একসময়ের ভারতীয় ব্যাডমিন্টন তারকা। আরও সহজ করে বললে, তিনি বলিউড তারকা দীপিকা পাডুকোনের বাবা।

 

এক সময় মাধুরীর প্রেমে দিওয়ানা ছিলেন দীপিকার বাবা প্রকাশ। অজানা এই গল্প দীপিকাই প্রকাশ্যে আনেন কয়েক বছর আগে। দীপিকা জানান, মাধুরীর বিয়ের খবর শুনে বাথরুমে ঢুকে হাউমাউ করে কেঁদেছিলেন তার বাবা প্রকাশ পাডুকোন।

 

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে দীপিকা বলেন, ‘যেদিন মাধুরীজির বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসে, সেদিন সকালে পত্রিকা পড়া থামিয়ে দ্রুত বাথরুমে ঢুকে যান বাবা। অনেকক্ষণ পার হলেও যখন তিনি বের হচ্ছিলেন না। তখন আমরা সবাই মিলে দরজা ধাক্কাতে শুরু করেন। এরপর বাবা বাথরুম থেকে বের হন। কেঁদে কেঁদে তার চোখ লাল হয়ে গিয়েছিল।’

 

মাধুরীর উদ্দেশে দীপিকা বলেন, ‘বাবা তোমার প্রেমে পাগল ছিল। সারাদিন নিজের রুটিনে ব্যস্ত থাকলেও তুমিই ছিলে বাবার অনুপ্রেরণা।’

 

দীপিকার কাছ থেকে এমন ঘটনার কথা শুনে লজ্জায় লাল হয়ে যান মাধুরী। অবশ্য শুধু দীপিকার বাবা কেন, এমন কোটি পুরুষের মনে গভীর জায়গা দখল করে নিয়েছেন মাধুরী। এখনো তার রূপ-সৌন্দর্য আর নৃত্যে মুগ্ধ হয় আট থেকে আশি সব বয়সী মানুষ।