ঐশ্বরিয়া এত সম্পদের মালিক?

বলিউডে প্রায় কয়েক দশক পার করেছেন বিশ্ব সুন্দরী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। বলিউডের অন্যতম শীর্ষ তারকাদের মধ্যেও ঐশ্বরিয়া একজন। ঐশ্বরিয়া অভিনয়ের পাশাপাশি সমাজকল্যাণমূলক বিভিন্ন কাজে নিজেকে যুক্ত রেখেছেন। কন্যা আরাধ্যাকে সঙ্গে নিয়ে এই ধরনের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যেতেও দেখা গেছে তাকে। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে গড়েছেন সম্পদের পাহাড়ও।

তবে শুধু যে অভিনয়ের মাধ্যমেই পাহাড়সম সম্পদের মালিক হয়েছেন তিনি তা কিন্তু নয়। অভিনয়ের পাশাপাশি করেছেন নানা ব্যবসাও। বেঙ্গালুরুর একটি স্টার্টআপ সংস্থায় তিনি এক কোটি টাকা বিনিয়োগ করেন। এ সংস্থাটি এমন একটি পদ্ধতি চালু করেছে, যেখানে পরিবেশগত বিভিন্ন উপাদান পরিমাপ করা হয়।

 

এর সাথে সাথে আরও একটি পুষ্টিকর উপাদান প্রস্তুতকারী এক স্টার্টআপ সংস্থায় ৫ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছেন ঐশ্বরিয়া। তাছাড়া মহারাষ্ট্রের একটি বায়ুশক্তি প্রকল্পের জন্যও কয়েক বছর আগে তিনি অর্থদান করেছিলেন। এ সব সংস্থার থেকেও তিনি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থও পান।

 

শুধু বিনিয়োগ নয়, ভারতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে অংশ নিয়েও ভারতীয় রুপিতে প্রায় ৮০ থেকে ৯০ কোটি নেন তিনি। এর পাশাপাশি অভিনয় থেকেও গড়েছেন সম্পদের পহাড়। আর এসব কিছু দিয়েই এখন বিপুল পরিমাণ সম্পদের মালিক সাবেক এ বিশ্বসুন্দরী।

বর্তমানে মুম্বাইয়ের ‘জলসা’তে বচ্চন পরিবারে সবাই একসঙ্গেই থাকেন। তবে অভিষেক বচ্চন এবং ঐশ্বরিয়া দুজন মিলে দুবাইয়ে প্রাসাদের মতো একটি ভিলা কিনেছেন। এ ছাড়াও মুম্বাইয়ের বান্দ্রার কাছে এ দম্পতি ২১ কোটি টাকা খরচ করে একটি আবাসন কিনেছেন। আর তাদের বাড়িতে তো বিলাসবহুল নানা গাড়ি আছেই। এর মধ্যে রয়েছে মার্সিডিজ বেঞ্জ, অডি, লেক্সাসের মতো মহার্ঘ গাড়িও।

 

শুধু যে আয় থেকে নিজের জন্য সম্পদ গড়েছেন ঐশ্বরিয়া তা কিন্তু নয়। ২০০৪ সালে ‘ঐশ্বরিয়া রাই ফাউন্ডেশন’ চালু করেন তিনি। এর উদ্দেশ্য, ভারতের দুঃস্থ, বিশেষত গ্রামীণ অঞ্চলের দরিদ্রদের আর্থিক সাহায্য প্রদান। অন্যদিকে বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম এ অভিনেত্রী দেশের সবচেয়ে বেশি আয়কর প্রদানকারীদের মধ্যেও একজন।