গ্যাসের সংকট? সহজে রান্নার উপায় জেনে নিন

By | May 4, 2022

বিভিন্ন কারণে গ্যাসের সংকট দেখা দিতে পারে। নাগরিক জীবনে তো আর কাঠ-খড়ি জ্বালিয়ে রান্নার উপায় নেই, এদিকে চুলাও যদি পিটপিট করে জ্বলে তখন খাবার তৈরির উপায় কী? সমস্যার সমাধান করে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ। গ্যাসের সংকট হলে অল্প তাপে রান্নার উপায় জেনে নিতে হবে। কীভাবে রাঁধলে কম গ্যাসেও রান্না করা সম্ভব চলুন জেনে নেওয়া যাক-

 

রাইস কুকার বা প্রেশার কুকার ব্যবহার

রান্নার কাজে রাইস কুকার ব্যবহার করতে পারেন। কারণ রাইস কুকারে ভাত ছাড়াও আরও অনেক ধরনের খাবার রান্না করা যায়। এতে গ্যাসের সংকটেও আপনি খাবার রাঁধতে পারবেন। এছাড়া গ্যাসের চুলায় প্রেশার কুকারেও রান্না করতে পারেন। এটি অল্প সময়ে খাবার সেদ্ধ করে দেবে।

 

অল্প পানিতে রান্না

ভাত রান্নার ক্ষেত্রে আমরা অনেকখানি পানি ব্যবহার করি। এরপর চাল সেদ্ধ হয়ে ভাত হলে মাড় ফেলে দেওয়া হয়। পানির পরিমাণ বেশি হলে তা ফুটতে সময় বেশি লাগে। যে কারণে রান্নায়ও দেরি হয়ে যায়। এদিকে অল্প গ্যাসে রান্না করতে হলে যতটা সম্ভব পরিমাণ কমাতে হবে। এতে কম সময়ে রান্না করা যাবে। তাই ভাত রান্নার সময় ততটুকু পানি ব্যবহার করুন, যতটুকু দিলে ভাত মাড় না গেলেও ঝরঝরে হবে।

 

সবজি ছোট টুকরা করে কাটুন

সবজির টুকরা বড় করে কাটলে তা সেদ্ধ হতে বেশি সময় নেয়। তাই দ্রুত সেদ্ধ করার জন্য ছোট করে কাটুন। এতে গ্যাসের তাপ কম থাকলেও সবজি সেদ্ধ করতে খুব বেশি কষ্ট হবে না।

 

রান্নার আগে ভিজিয়ে রাখুন

চাল ও ডালের মতো খাবারগুলো রান্নার আগে ভিজিয়ে রাখুন। ভালোভাবে ভিজলে তা সেদ্ধ হতে কম সময় নেয়। তাই অল্প গ্যাসে দ্রুত রান্নার কাজ সারতে চাইলে চাল ও ডাল রান্নার আগে আধা ঘণ্টার মতো ভিজিয়ে রাখুন। এতে রান্না সহজ হবে।

 

খাবার মজুদ

সম্ভব হলে ডিপ ফ্রিজে এক সপ্তাহের মতো খাবার মজুদ রাখুন। তবে যে বক্সে খাবার রাখবেন সেটি যেন ফুড গ্রেড হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। নয়তো খাবারের মান নষ্ট হবে। কিছু রান্না করা খাবার মজুদ করা থাকলে গ্যাসের সংকটেও খাবার নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

 

প্রস্তুতি শেষ করে রান্না করুন

রান্না করতে গিয়ে এটা-সেটা তৈরির প্রস্তুতি নেবেন না। এতে রান্নার কাজ শেষ করতে আরও সময় লেগে যায়। তাই আগে সব প্রস্তুতি শেষ করে এরপর রান্নার কাজ শুরু করুন। মাঝে কোনো বিরতি নেবেন না।

 

চুলা বন্ধ করে দিন

রান্না প্রায় হয়ে এলে চুলা বন্ধ করে দিন। তবে খাবারের পাত্রটি তখনই চুলা থেকে নামাবেন না। চুলার উপর আরও কিছুক্ষণ রেখে দিন। চুলার তাপে বাকিটা সেদ্ধ হয়ে যাবে।

 

পাতলা হাঁড়ি ব্যবহার

হাঁড়ির তলা ভারী হলে তাতে খাবার রান্না করতে সময় লাগে। কারণ বেশি তাপ ছাড়া ভারী কোনো হাঁড়ি উত্তপ্ত করা কঠিন। তাই গ্যাসের সংকটে পাতলা ধরনের সিলভারের হাঁড়ি বা কড়াই ব্যবহার করুন। এ ধরনের পাত্র খুব দ্রুত উত্তপ্ত হয়। তাই অল্প আঁচেও এতে রান্না করা যায়।

 

দইয়ের ব্যবহার

মাংস সেদ্ধ হতে অনেক বেশি সময় লাগে। এক্ষেত্রে রান্নার ঘণ্টাখানেক আগে মাংস মেরিনেট করে রাখতে পারেন। মেরিনেটের সময় অন্যান্য মসলার সঙ্গে যোগ করুন টক দই। এটি মাংস সহজে সেদ্ধ হতে সাহায্য করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *