১২ গুণীজনকে সম্মাননা দিলো ‘বাচসাস’

By | April 26, 2022

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস)। দেশের শিল্প-সংস্কৃতি ও চলচ্চিত্র সাংবাদিকতায় অবদান রাখার জন্য ১২ জন গুণীকে সম্মাননা দিয়েছে সাংবাদিকদের ঐতিহ্যবাহী সংগঠনটি।

সোমবার (২৫ এপ্রিল) রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এই গুণীজন সম্মাননা ও জাঁকজমকপূর্ণ ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বাচসাস সভাপতি ফালগুনী হামিদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান বাবু।

ইফতারে উপস্থিত ছিলেন বাচসাসের বর্তমান কমিটির সহ সভাপতি সৈকত সালাহউদ্দিন, সহ-সাধারণ সম্পাদক তুষার আদিত্য, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, অর্থ সম্পাদক মঈন আব্দুল্লাহ, আন্তর্জাতিক ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদ মানজুর, সমাজ কল্যাণ ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক শ্রাবণী রাখি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক লিমন আহমেদ, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মীর সামি, দফতর সম্পাদক নিপু বড়ুয়া।

আরও ছিলেন ইব্রাহিম খলিল খোকন, অঞ্জন দাশ, শেখ সেলিম, এম এস রানা, দাউদ হোসাইন রনি, জনি হক ও ইসরাফিল শাহিন।

একঝাঁক তারকার উপস্থিতিতে বাচসাসের ইফতার মাহফিল ছিলো আলোকিত। শিল্পী সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চনের নেতৃত্বে ছিলেন নিপুণ আক্তার, নিরব, অঞ্জনা, শাহনূর, জেসমিন, আজাদ খান, অধরা খান, কায়েস আরজু, ডি এ তায়েব। আরও ছিলেন শিল্পী সংঘের সভাপতি আহসান হাবীব নাসিম, সাধারণ সম্পাদক রওনক হাসান, অনুষ্ঠান সম্পাদক রাশেদ মামুন অপু। অভিনেতা আজিজুল হাকিম, মুকিত জাকারিয়া, আইরিন তানি, সংগীতশিল্পী লোপা হোসাইনসহ একঝাঁক তারকা এসেছিলেন চলচ্চিত্র সাংবাদিকদের আমন্ত্রণে।

বাচসাসের প্রায় সাড়ে ৩ শতাধিক সদস্যদের উপস্থিতি গুণীজন সম্মাননা ও ইফতার মাহফিলকে দিয়েছে পূর্ণতা।

এবার গুণীজন সম্মাননা পেয়েছেন চলচ্চিত্রে অভিনেতা ও পরিচালক-প্রযোজক আলমগীর, নির্মাতা ছটকু আহমেদ ও চিত্রগ্রাহক আব্দুল লতিফ বাচ্চু; টেলিভিশন ও মঞ্চ নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান ও নাট্যব্যক্তিত্ব আসাদুজ্জামান নূর; সংগীতে সংগীতশিল্পী সৈয়দ আব্দুল হাদী, সংগীতশিল্পী রুনা লায়লা ও গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার; সাংবাদিকতায় সাংবাদিক-গবেষক রফিকুজ্জামান, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও সাংবাদিক শহিদুল হক খান ও চলচ্চিত্র গবেষক ও সাংবাদিক অনুপম হায়াৎকে।

রুনা লায়লা, আসাদুজ্জামান নূর ও শহিদুল হক খান ছাড়া বাকি সবাই সশরীরে উপস্থিত হয়ে সম্মাননা গ্রহণ করেন। উপস্থিত না হতে পারলেও তারা এই সম্মাননার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘এতো গুণী মানুষদের সম্মাননা জানাতে পারাটা আনন্দের। যারা আজ সম্মাননা পেয়েছেন তারা সবাই রাষ্ট্রের গর্ব। বাচসাসকে ধন্যবাদ এইসব গুণী মানুষদের সম্মানিত করার জন্য।’

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘আজ এতসব গুণী মানুষদের সাথে বসে আমি গর্ববোধ করছি। আমার পাশে আছেন কিংবদন্তি অভিনেতা আলমগীর ভাই। তার সিনেমা দেখার জন্য কৈশোরে পাগল ছিলাম। এছাড়াও এখানে সবাই আমাদের গর্ব ও অহংকারের মানুষ৷ এইসব মানুষকে সম্মাননার জন্য বেছে নেয়ায় সাংবাদিকদের স্বনামধন্য সংগঠন বাচসাসকে ধন্যবাদ জানাই।’

অভিনেতা আলমগীর বলেন, ‘এর আগেও আমি বাচসাস থেকে সেরা অভিনেতার পুরস্কার ও আজীবন সম্মাননা পুরস্কার পেয়েছি, এবার পেলাম গুণীজন সম্মাননা। বাচসাসের সবাইকে ধন্যবাদ আমাকে গুণীজন হিসেবে এই সম্মাননা দেওয়ার জন্য।’

নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির প্রতি কৃতজ্ঞতা। আমি শুধু একটা কথাই বলব, সাংবাদিক ভাইয়েরা চলচ্চিত্রের পাশাপাশি নাটকেরও সমালোচনা করবেন। আমাদের এখানে নাটকের সমালোচনা করার জায়গাটা খুবই দুর্বল।’

সবশেষে সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি করেন বাচসাস সভাপতি ফালগুনী হামিদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *